Sunday, July 14, 2024
HomeAgriculturalমৎস্য অবতরণ ও বিক্রয় কেন্দ্র স্থাপনে সর্বাত্মক সহোযোগিতা থাকবেঃ পৌর মেয়র মকছুদ

মৎস্য অবতরণ ও বিক্রয় কেন্দ্র স্থাপনে সর্বাত্মক সহোযোগিতা থাকবেঃ পৌর মেয়র মকছুদ

আমিনুল হকঃ

দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীতে মৎস্য অবতরণ ও ক্রয়-বিক্রয় কেন্দ্র স্হাপনে মহেশখালী পৌরসভার পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহোযোগিতা থাকবে বলে জানিয়েছেন মহেশখালী পৌরসভার তিন তিন বারের সফল মেয়র আলহাজ্ব মকছুদ মিয়া।

সূত্রে জানা যায়, মৎস্য অবতরণ ও ক্রয়-বিক্রয়ের সুবিধার্থে সরকার মহেশখালীতে একটি মৎস্য আহরণ কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছেন।

এ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য প্রাথমিকভাবে স্থান যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। স্থান পরিদর্শনের জন্য জাপানী সংস্থা জাইকার দুই সদস্য সহ মৎস্য অধিদপ্তরের একটি টিম ০৬ অক্টোবর (বুধবার) মহেশখালী জেটি সংলগ্ন পুরাতন বি আই ডব্লিউ ঘাট, তাজিয়া কাটা ঘাট ও ঘটিভাঙ্গা ঘাট পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শন টিমে জাপানী সংস্থা জাইকার প্রতিনিধি নাতা হাসি ও ইবেতা, মৎস্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি এ এম গুলদার, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম খালেকুজ্জামান, মহেশখালী উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আবদুর রহমান খান, মেরিন ফিশারিজ অফিসার মোঃ আলা উদ্দীন আহসান ও মৎস্য অফিসের রবি চাকমা সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শন টিম দুপুরে মহেশখালী ডিজিটাল আইল্যান্ড সেন্টার সংলগ্ন স্থানে মহেশখালী পৌরসভার তিন তিন বারের সফল মেয়র আলহাজ্ব মকছুদ মিয়া’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

এসময় মেয়র আলহাজ্ব মকছুদ মিয়া পরিদর্শন টিমকে ফুলেল শুভেচছা দিয়ে স্বাগত জানান এবং মহেশখালী জেটি সংলগ্ন এলাকায় মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র স্থাপন করলে পৌরসভার পক্ষ থেকে জায়গা প্রদান সহ সর্বাত্মক সহোযোগিতার আশ্বাস দেন।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মহেশখালী উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, শিক্ষক ও সাংবাদিক আমিনুল হক, মহেশখালী পৌরসভার কাউন্সিলর খায়ের হোসেন, সাবেক কাউন্সিলর এবাদুল করিম বাদল ও জয়নাল আবেদীন।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম খালেকুজ্জামান বলেন, মহেশখালীতে প্রায় ১৭ হাজার জেলে রয়েছে। কয়েকশত বিভিন্ন ধরনের মৎস্য আহরণের বোট রয়েছে। মৎস্য উঠানো-নামানে এবং ক্রয়-বিক্রয়ের সুবিধার্থে মহেশখালীতে স্থাপন করা হবে মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র।

তারই ধারাবাহিকতায়, মহেশখালীর কয়েকটি জায়গা পরিদর্শন করা হয়েছে। বোট নোঙর, পরিবহন সুবিধা, নিরাপত্তা ব্যবস্থা, পর্যাপ্ত পরিমাণ জায়গা সহ বিভিন্ন বিষয়ে সুযোগ সুবিধা চিন্তা করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে স্হানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সমম্বয়ে মৎস্য আহরণ ও ক্রয়-বিক্রয় কেন্দ্র স্হাপন করা হবে।

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!