Monday, May 20, 2024
HomeNewsউপকূল ফাউন্ডেশন;ব্যতিক্রমী আয়োজনে মহেশখালী ইউনিটের যাত্রা শুরু

উপকূল ফাউন্ডেশন;ব্যতিক্রমী আয়োজনে মহেশখালী ইউনিটের যাত্রা শুরু

‘ঈদের আনন্দে হাসি ফুটুক সকল পরিবারের মাঝে’ এ প্রতিপাদ্য ধারণ করে ব্যতিক্রমী আয়োজনের মধ্যে দিয়ে যাত্রা শুরু করলো ‘উপকূল ফাউন্ডেশন’ মহেশখালী উপজেলা ইউনিট।

১২ মে (বুধবার) উপজেলার হোয়ানক ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার মাঠে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সমাজিক দুরত্ব বজায় রেখে উপকূল ফাউন্ডেশন মহেশখালী উপজেলা ইউনিটের আয়োজনে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত কর্মহীন, অসহায় হতদরিদ্র পরিবার ও প্রতিবন্ধী, বিধবা মহিলাদের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, ‘উপকূল ফাউন্ডেশনের’ চেয়ারম্যান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান গবেষক এম. আমিরুল হক চৌধুরী পারভেজ’র সার্বিক সহযোগিতা ও দিকনির্দেশনায় করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত কর্মহীন হতদরিদ্র ছিন্নমূল পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণের মধ্যে দিয়ে যাত্রা শুরু করেন উপকূল ফাউন্ডেশন মহেশখালী উপজেলা ইউনিটের কার্যক্রম।

উক্ত কার্যক্রমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপকূল ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবী ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর মুহাম্মদ আবুল হাসনাত ফাহিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপকূল ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলা ইউনিটের সদস্য মুহাম্মদ মাসুম, কালের কন্ঠ শুভ সংঘের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী সংসদের সদস্য, দৈনিক কক্সবাজার বার্তার মহেশখালী উপজেলা প্রতিনিধি ও মহেশখালী সব খবরের সহ সম্পাদক অসীম দাশ গুপ্ত।

  • এসময় বক্তারা বলেন, ‘এই বৈশ্বিক মহামারী করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতিতে দারিদ্রতা যেন কারো ঈদের আনন্দ ম্লান করতে না পারে, সেই বিষয় টি মাথায় রেখে আমরা চেষ্টা করছি এমন কিছু পরিবারের মুখে হাসি ফুটাতে, করোনা সংকটে যাদের ঘরে কোন ঈদের কোনো আয়োজন ছিলো না।’ তারই ধারাবাহিকতায় আজ উপকূল ফাউন্ডেশন মহেশখালী উপজেলা ইউনিট ব্যতিক্রমী আয়োজনে যাত্রা শুরু করেন।বক্তারা আরও বলেন, ‘ঈদ উপহার বিতরণের মধ্যদিয়ে আমরা বলার চেষ্টা করেছি- মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়াবে, ঈদের আনন্দ হবে সব মানুষের মাঝে।’

এসময় উপকূল ফাউন্ডেশন মহেশখালী উপজেলা ইউনিটের আয়োজকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পত্রিকা দৈনিক শেয়ার বীজের কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি ও দৈনিক আপন কন্ঠের মহেশখালী উপজেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ কাইমুল ইসলাম ছোটন, দৈনিক রুপালী সৈকতের মহেশখালী উপজেলা প্রতিনিধি এম. কাইছারুল ইসলাম, কক্স জার্নাল টোয়েন্টিফোরের প্রতিনিধি এম.ডি শাহ্ জাহান, চট্টগ্রাম ট্রিবিউনের নুর মুহাম্মদ শেখ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবু সুফিয়ান, হাফেজ মুহাম্মদ কলিম উল্লাহ্, মুফিজুর রহমান, মুহাম্মদ ইব্রাহিম ও মহেশখালী ট্রিবিউনের নির্বাহী সম্পাদক ইশরাত মুহাম্মদ শাহ জাহান সহ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, “সমৃদ্ধ উপকূলে মুক্তির হাসি” এ স্লোগান ধারণ করে ‘জনসচেতনতা হোক পরিবর্তনের হাতিয়ার‘ এ প্রতিপাদ্যে ২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারী যাত্রা শুরু করে উপকূলের আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করা উপকূল ফাউন্ডেশন।

সূত্রে জানা যায়, উপকূল ফাউন্ডেশন স্বেচ্ছাসেবীরা তরুণদের মেধা, ইচ্ছা শক্তি, দক্ষতা, সৃজনশীলতায় সম্মিলিত প্রয়াসে মাদকমুক্ত সমাজ গঠন, আত্ম-উন্নয়ন, উপকূল সম্পর্কিত বিষয়াবলী, স্থানীয় আর্থসামাজিক উন্নয়নে জনসচেতনতায় স্বেচ্ছাসেবী কর্মকাণ্ড কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নিজ নিজ জন্মস্থান/শিক্ষা প্রতিষ্ঠান/এলাকার কল্যাণে টিম/ইউনিট গঠন এবং তাদের সম্মিলিত প্রয়াসে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সমৃদ্ধির প্রয়াস বয়ে আনার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে স্বেচ্ছাসেবীরা সমাজের দায়বদ্ধতায় নিজে ধূমপান ও মাদকমুক্ত থেকে ধূমপান ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম পরিচালনা সহ জনস্বার্থে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

তাছাড়া জীবন বাঁচাতে রক্ত দান ও রক্ত  দাতা সন্ধানে সহায়তা, নিজ এলাকায় জলবায়ু, পরিবেশ বিপর্যয়, দুর্যোগ দুর্ভিক্ষের সময় জীবন বাঁচাতে নিজেদের সাধ্যমত কার্যক্রম ও জনসচেতনতা মূলক তথ্য প্রদানে সহায়তা করে আসছেন।

এছাড়াও ২০১৫ সাল থেকে উপকূল ফাউন্ডেশনের প্রস্তাবিত ৭০’র ভয়ায় ১২ নভেম্বর ঘুর্ণিঝড়ের দিনকে  ‘উপকূল দিবস‘ এবং ‘বিশ্ব উপকূল দিবস‘ দাবি ও পালন করে আসছে সংগঠনটি।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে উপকূলীয় দ্বীপে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি ও বিভিন্ন দ্বীপে তালবীজ বপন, ফ্রি-ব্লাড গ্রুপ ক্যাম্পেইন, খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, শীত বস্ত্র বিতরণ, করোনাকালে ফ্রি-মাস্ক বিতরণসহ নানান সচেতনতা মূলক ও সামাজিক কর্মসূচি পালন করে ইতিমধ্যে সারাদেশে সাড়া ফেলেছেন সংগঠনটি।

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!