Friday, June 2, 2023
HomeNewsশাপলাপুরে পিতার হাতে পুত্র খুন;পেশাদার খুনি গ্রেফতার,অস্ত্র উদ্ধার

শাপলাপুরে পিতার হাতে পুত্র খুন;পেশাদার খুনি গ্রেফতার,অস্ত্র উদ্ধার

কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর শাপলাপুর ইউনিয়নে পিতার হাতে পুত্রের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মোঃ এবাদুল্লাহ নামে এক পেশাদার খুনিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে মহেশখালী থানা পুলিশ।

১৮ই মে (মঙ্গলবার) দিবাগত রাত ১টার সময় শাপলাপুরের পাহাড়ি আস্তানায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মোঃ এবাদুল্লাহ্ শাপলাপুল ইউনিয়নের মৌলভী কাটা গ্রামের বাসিন্দা আনোয়ারের পুত্র বলে জানা যায়।

এসময় তাকে সাথে নিয়ে গভীর পাহাড়ে অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে যান মহেশখালী-কুতুবদিয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ জাহেদুল ইসলাম ও মহেশখালী থানার ওসি (তদন্ত) আশিক ইকবালের নেতৃত্ব মহেশখালী থানার একদল পুলিশ।

এসময় আসামির দেওয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক গভীর পাহাড়ে তার আস্তানা থেকে ৩ টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় মহেশখালী থানায় একটি অস্ত্র মামলা দায়ের হয়েছে বলে থানা সুত্রে জানা যায়।

উল্লেখ্য, গত (১০ই মে) সোমবার উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের জামিরছড়ি এলাকায় পিতা আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে ঘুমন্ত অবস্থায় ছেলে ও পরিবারের অন্য সদস্যদের উপর অতর্কিত হামলা চালালে গুরুতর অবস্থায় চকরিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক আলতাফ হোসেনের ছেলে মোঃ জোবাইর (৩৫) কে মৃত ঘোষনা করেন। এসময় পরিবারের অন্য আহত সদস্যদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এ ঘটনায় তৎক্ষনাৎ পুলিশ হত্যার দায়ে অভিযুক্ত নিহতের পিতা আলতাফ হোসেন ও আলতাফ হোসেনের ছেলে টিপুকে মহেশখালীর মৌলভীকাটা এলাকায় এক বাড়িতে আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়।

পেশাদার খুনি মোঃ এবাদুল্লাহ্ অতীতে বিভিন্ন সময় টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন ঘটনায় তার সঙ্গীয় সন্ত্রাসীদের নিয়ে হামলা চালিয়েছিল বলে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়া যায়।

মহেশখালী-কুতুবদিয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ জাহেদুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন আগে শাপলাপুর ইউনিয়নে পিতার সহযােগিতায় পুত্র খুনের ঘটনার অন্যতম আসামি মোঃএবাদুল্লাহ্।

সে পুলিশের কাছে স্বীকারােক্তি দিয়েছে , নিহতের পিতার কাছ থেকে সেদিন রাতেই নগদ ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে তার সহযােগীদের নিয়ে খুনের ঘটনায় অংশ নেন।

উক্ত ঘটনায় ১২ মে (সোমবার) নিহত জুবাইরের বােন রেহেনা আক্তার বাদী হয়ে মহেশখালী থানায় ১৫ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

গ্রেফতার হওয়া মোঃ এবাদুল্লাহ্ ওই মামলার ১৪ নম্বর আসামি।

এ বিষয়ে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মােঃ আবদুল হাই বলেন, জুবাইর হত্যায় এবাদুল্লাহ’র বিরুদ্ধে আদালতে হত্যাসহ ৫ টি মামলা বিচাররাধীন রয়েছে। এদিকে গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে মহেশখালী থানার উপ-পরিদর্শক আল আমিন সরকার বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে একটি মামলা রুজু করেছেন বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, হত্যার দিনই আমরা ঘাতক পিতা ও তার অপর স্ত্রীর পুত্র কে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। আজকে আমরা সেদিন রাতে হত্যাকান্ডে অংশগ্রহন করা পেশাদার খুনিকে তার আস্তানা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এবং পরবর্তীতে তার কাছে থাকা বিভিন্ন হত্যাকান্ডে ব্যাবহৃত তিনটি দেশীয় তৈরী অস্ত্র উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি।

উক্ত হত্যা মামলার বাকি আসামীদের গ্রেপ্তার করতে মহেশখালী থানা পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক অভিযান চলমান থাকবে।

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!