Monday, February 26, 2024
HomeNewsমেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা : মহেশখালী ও কুতুবদিয়া থেকে চান্স পেলেন যারা

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা : মহেশখালী ও কুতুবদিয়া থেকে চান্স পেলেন যারা

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা তথা এমবিবিএস ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় এ পর্যন্ত কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালী’র ৯ জন এবং কুতুবদিয়ার’র ১০ জন সহ মোট ১৯ জন মেধা তালিকায় নিজেদের স্হান করে নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, উপজেলায় হোয়ানক ইউনিয়নের জামাল পাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবু তালেব’র মেয়ে উম্মে জুবাইরুন্নেসা। সে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা তে মেধা তালিকার ২৭২ নম্বর পেয়ে ২০৫৬ নাম্বারে অবস্থান করে বরিশাল শেরে-বাংলা মেডিকেল কলেজে অধ্যায়নের সুযোগ পেয়েছে।

উম্মে জুবাইরুন্নেসা ২০১৮ সালে হোয়ানক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি ও ২০২০ সালে চট্টগ্রাম কাপাসগোলা সিটি করপোরেশন মহিলা কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। শিক্ষা জীবনে এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় সাফল্যের সাথে জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।

মহেশখালী’র আরেক কৃতি সন্তান আবু নাঈম। সে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় ২৭০.২৫ নম্বর পেয়ে ২৭৭৮ নাম্বারে অবস্থান করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে অধ্যায়নের সুযোগ পেয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের উত্তর নলবিলা গ্রামে। তার বাবার নাম মাওলানা মুহাম্মদ ইসমাইল, মাতা মর্তুজা বেগম। সে মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও চট্টগ্রাম বাকলিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। আবু নাঈম’র বড় ভাই আবু তৈয়ব মহেশখালী ট্রিবিউন কে বলেন, ছোট ভাই আবু নাঈম ছোট বেলা থেকেই তুখোড় মেধাবী ছিলেন। আমাদের পরিবারের স্বপ্ন ছিল আবু নাঈম ডাক্তার হয়ে জনসেবা করবে। মহান আল্লাহ আমাদের স্বপ্ন পূরণ করেছেন। এখন মহেশখালীবাসী প্রতি আমরা দোয়া চাই, আবু নাঈম যাতে সাফল্যের সাথে এমবিবিএস শেষ করে জনসেবা করতে পারে।

এবছর মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে মহেশখালীর যেসব সন্তান সুনাম অর্জন করেছেন তাদের মধ্যে আরেকজন হলেন- মুহাম্মদ ওয়াহিদুল ইসলাম। সে জন্মগতভাবে মহেশখালীর হলেও তারা এখন স্বপরিবারে টেকনাফে বসবাস করেন। তার বাবার নাম হাজ্বী আবুল কালাম, মাতার নাম ফরিদা বেগম। তারা বর্তমানে টেকনাফ উপজেলার হোয়াক্যং ইউনিয়নে বসবাস করেন।

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা
প্রেসিডেন্ট স্কাউট এওয়ার্ডে ওয়াহিদুল

মুহাম্মদ ওয়াহিদুল ইসলাম ছোট বেলা থেকেই তুখোড় মেধাবী ছিলেন। সে কক্সবাজার সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ঢাকা নটরডেম কলেজ থেকে সাফল্যের সাথে জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। সে ৮ম ও ৯ম শ্রেণিতে অধ্যায়নকালীন কক্সবাজার জেলা প্রশাসন কর্তৃক শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী নির্বাচিত হন। ১০ম শ্রেণিতে অধ্যায়নকালে রাষ্ট্রপতির হাত থেকে প্রেসিডেন্ট স্কাউট এ্যাওয়ার্ড পদক গ্রহণ করেন। এছাড়া ৪র্থ শ্রেণিতে জিএইচএফ বৃত্তি ও ৫ম শ্রেণিতে টেকনাফ উপজেলায় ট্যালেন্টফুল বৃত্তি সহ প্রথম স্থান অধিকার করেছিলেন। এছাড়াও মাধ্যমিকে পড়াকালীন সময়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে সুনামের সহিত উত্তীর্ণ হয়ে একাধিকবার জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী হিসেবে পুরস্কার গ্রহণ করেন বলে জানা যায়।

মেডিকেল ভর্তি পরিক্ষায় সে মেধা তালিকায় ২৭৯.৫ নম্বর পেয়ে ২৬৮ স্থান অধিকার করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে অধ্যায়নের সুযোগ পান।

২০২০-২১ এমবিবিএস শিক্ষা বর্ষে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় মহেশখালী থেকে যারা মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা তে উত্তীর্ণ হয়ে মহেশখালীর সুনাম কুড়িয়েছেন তাদের মধ্যে আরও কয়েকজন হলেন-

সজীব শর্মা। সে মেধা তালিকায় ২৭৬.৫ নম্বর পেয়ে ৭০৪ স্থান অধিকার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে অধ্যায়নের সুযোগ পান।

মেডিকেল ভর্তি পরিক্ষা
সজিব শর্মা

হাসনান ইবনাত তুষমি, সে মেধা তালিকায় ২৭২.৭৫ নম্বর পেয়ে ১৭৪৫ নাম্বারে অবস্থান করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে।

মাহি রশিদ চৌধুরী মেধা তালিকায় ২৭২.৫ নম্বর পেয়ে ১৮১৯ নাম্বারে অবস্থান করে রংপুর মেডিকেল কলেজ।

মুহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন মেধা তালিকায় ২৬৯.৭৫ নম্বর পেয়ে ৩০৬৫ নাম্বারে অবস্থান করে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস পড়ার সুযোগ পান।

নাফিয়া ফেরদৌসী মাওয়া, সে মেধা তালিকায় ২৬৮.৩৫ নম্বর পেয়ে ৩৯৫০ নাম্বারে অবস্থান করে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজে অধ্যায়নের সুযোগ পান।

তার পিতা আবুল কালাম আজাদ, কক্সবাজার সিটি কলেজের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে কর্মরত। মাতা জেসমিন আরা শাহীন শেলী।

মাওয়া মহেশখালী’র কুতুবজুমের লাল মোঃ সিকদার বাড়ীর বিশিষ্ট সমাজ সেবক, শিক্ষানুরাগী ও ব্যবসায়ী জনাব সাইফুল হক সিকদারের নাতনী।

নাফিয়া ফেরদৌসী মাওয়া’র এ সফলতায় তার পিতা সহ পরিবারের সকলে মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন, এবং সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

মেডিকেল ভর্তি পরিক্ষা

তাওরিন তাসনিয়া তাসপি, সে মেধা তালিকায় ২৭৭.৫ নম্বর পেয়ে ৫০৮ নাম্বারে অবস্থান করে শহিদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজে,

এছাড়া কুতুবদিয়া উপেজলা থেকে ২০২০-২১ শিক্ষা বর্ষে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় যারা উত্তীর্ণ হলেনঃ

০১। রিজভী আহমেদ রাহাত,

এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, সিলেট।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৭৩.২৫

মেরিট পজিশনঃ ১৫৫৪

প্রাক্তন ছাত্র- কুতুবদিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।

০২। বিলকিস আক্তার, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৭১.২৫

মেরিট পজিশনঃ ২৪০৭

প্রাক্তন ছাত্র- ধুরুং স্কুল এন্ড কলেজ।

০৩। শাউরিন বিনতে রমিজ, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৭০.৫

মেরিট পজিশনঃ ২৭০৪

প্রাক্তন ছাত্রী – কুতুবদিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।

০৪। শরীফুল ইসলাম, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৭৪

মেরিট পজিশনঃ ১৩৩৩

প্রাক্তন ছাত্র- ধুরুং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।

০৫। মুশফিকুল হাসান সজীব, যশোর মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৬৯.২৫

মেরিট পজিশনঃ ৩৩৮৮

প্রাক্তন ছাত্র- কলেজিয়েট স্কুল।

০৬। ফাইরিন সোলতানা, খুলনা মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৭১

মেরিট পজিশনঃ ২৪৬৮

প্রাক্তন ছাত্রী – কুতুবদিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।

৭। নূরে আনজুমান, ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ২৮২ মেরিট পজিশনঃ ৮২

৮। প্রজ্ঞা পারমিতা রয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৮০ মেরিট পজিশনঃ২৪৬

৯। মোঃ মিজবাউল মোকারাব্বিন আরমান, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ

প্রাপ্ত স্কোরঃ ২৭১.২৫

মেরিট পজিশনঃ ২৪০৭

প্রাক্তন ছাত্র – দারুল উলুম কামিল মাদ্রাসা।

১০. মোবাশশেরা জন্নাত তাসকিয়া
চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজে
প্রাপ্ত স্কোর : ২৭৪.২৫
মেরিট পজিশন : ১২৭৪

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা সফলতার সাথে  উত্তীর্ণ সকলকে জানাই ‘মহেশখালী ট্রিবিউন‘ পরিবারের পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

বিঃদ্রঃ উত্তীর্ণ সকলের পূর্ণাঙ্গ জীবনবৃত্তান্ত এখানো আমাদের হাতে আসেনি। কারও জানা থাকলে আমাদের কমেন্ট বক্সে পাঠানোর অনুরোধ করা হলো।

 

Related News

3 COMMENTS

  1. Please see the Data Base File of the Doctors and Medical Students of Cox’s Bazar, Bangladesh. Be proud to be the amazing Documented Part of the History of Medical Legends of your own Beloved Land of Cox’s Bazar. Please send your details as the format provided below….
    1. Name:
    2. Medical College:
    3. MBBS/ BDS:
    4. Medical College Batch No (Not Session) of the College u admitted in/Graduated from
    5. MBBS/BDS Passing Year or MBBS/BDS Year of Studentship (Like 1st Year—5th Year)
    6. Internship Status: Hospital name with Running/Completed (For Juniors only)
    7. Current Status: Job/Post/Post Graduation Status/ Post Graduation you fighting for (Like Part I, II, III/Thesis with Subject)
    8. Present Address:
    9. Permanent Address:
    10. Mobile:
    11. E-mail:
    12. Your Best Picture Ever
    Please inbox me
    Dr Mohammed Shamsul Islam Khan
    MBBS (CMC), BCS (Health)
    Fellow, Neuro-Endoscopy (Brain & Spine);
    World Skull-Base Fellow, Bangalore, India;
    AO-Spine (Switzerland) Fellow, Asia-Pacific
    FCPS (Neuro-Surgery), Assistant Professor, Department of Neuro-Surgery Dhaka Medical College Hospital, Dhaka
    01713455662
    drsikhan@gmail.com
    Admin (Creator) of the Group, Doctors and Medical Students of Cox’s Bazar, Bangladesh

Comments are closed.

- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!