Tuesday, April 23, 2024
HomeNewsমহেশখালীতে সরকারি বই উদ্ধারঃ শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছানোর আগেই ভাঙারির দোকানে

মহেশখালীতে সরকারি বই উদ্ধারঃ শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছানোর আগেই ভাঙারির দোকানে

ইশরাত মুহাম্মদ শাহ জাহান-মহেশখালী,কক্সবাজারঃ ২০২২ শিক্ষা বর্ষের জন্য সরকারি প্রদত্ত বই শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছানোর আগে বিক্রি হয়ে গেছে ভাঙারির দোকানে। ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের মহেশখালীর বড় মহেশখালী ইউনিয়নে। ১৬ জানুয়ারি (রবিবার) রাতে ভাঙারির দোকানে ২০২২ শিক্ষা বর্ষের বই বিক্রি হচ্ছে এমন খবর পেয়ে সেই দোকানে উপস্থিত হন বড় মহেশখালী ইউনিয়নে গ্রাম পুলিশ লুৎফর রহমান ও মোঃ সোলায়মান। রাতে বই গুলো তারা পাহারায় রেখে সকালে মহেশখালী থানা পুলিশ কে খবর দেওয়া হয়।
১৭ জানুয়ারী (সোমবার) দুপুরে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আবদুল হাইয়ের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বড় মহেশখালী ইউনিয়নের মিয়াজির পাড়া ছিদ্দিকের ভাঙারি দোকান থেকে ২ হজার কপি বই উদ্ধার করে। এসময় কাউকে আটক করা হয়নি।
সূত্রে জানা যায়, বড় মহেশখালী বড় কুলাল পাড়া গ্রামের মনজুর আহমদের পুত্র রুবেল বইগুলো বিক্রি করে। বইগুলো লিডারশিপ কলেজে রাখা সরকারি গুদাম থেকে একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সংগ্রহ করেছে। এই সিন্ডিকেটটি ইতিমধ্যে অনেক বই অন্যত্র বিক্রি করেছে। এতে গুদামে দায়িত্বরতরা জড়িত বলেও জানা যায়। নতুন বই দেখে দোকান মালিক ও ভাঙারি ব্যবসায়ির সন্দেহ হলে বিষয়টি স্থানীয় বড় মহেশখালী ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ লুৎফুর রহমান ও সোলায়মান কে জানান ব্যবসায়ীরা তারা ওই দোকানে গিয়ে বিপুল সংখ্যক নতুন বইয়ের মজুদ দেখতে পান। মজুদ বইগুলো ২০২২ সালের চলতি শিক্ষাবর্ষের মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল হাই বলেন, শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণের সরকারি বই বিক্রি করাটা খুবই দুঃখজনক কাজ। বইগুলো পুলিশ জব্দ করে বর্তমান থানার হেফাজতে রাখা হয়েছে। প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী রুবেল নামে এক ভাঙারিওয়ালার নাম পাওয়া গেছে। পরবর্তী অনুসন্ধান ও আইনি উদ্যোগ নেওয়া হবে।
মহেশখালী উপজেলা শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার ফজলুল করিম জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রাতিষ্ঠানিক ও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে তদন্ত করা হচ্ছে।
Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!