Tuesday, June 18, 2024
HomeAgriculturalপাট থেকে নতুন এন্টিবায়োটিক আবিষ্কার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষকের

পাট থেকে নতুন এন্টিবায়োটিক আবিষ্কার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষকের

বিশ্বকে নতুন একটি এন্টিবায়োটিক দিলো বাংলাদেশ। বিশ্বকে এক নতুন এন্টিবায়োটিকের খোঁজ দিলেন বাংলাদেশের বিজ্ঞানীরা।

এটি আবিস্কার করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রান রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিভাগের অধ্যাপকহাসিনা খান, রিয়াজুল ইসলাম এবং জীন প্রকৌশল ও জৈব প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক আফতাবউদ্দিনের নেতৃত্বে একদল গবেষক।

নতুন এন্টিবায়োটিকের নাম দেয়া হয়েছে হোমিকরসিন। বেশ কিছু শক্তিশালিব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে এটি ভালো কাজ করছে বলে প্রমাণ মিলেছে।

বিশ্বখ্যাত ন্যাচার পাবলিসিং গ্রুপের ‘সাইন্টিফিক রিপোর্ট’ জার্নালে,তাদের এই গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

পাট নিয়ে দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে গবেষনা করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরপ্রান রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিভাগের অধ্যাপক হাসিনা খান।

পাটের জীবন রহস্য বের করতে গিয়ে তিনি এর বিভিন্ন অংশে নানা রকম অণুজীবেরসন্ধান পান। সেই অনুজীবের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য জানার আগ্রহ থেকে একই বিভাগের অণুজীববিশেষজ্ঞ অধ্যাপক রিয়াজুল ইসলামকে সাথে নিয়ে শুরু হয় নতুন গবষেনা।

রিয়াজুল ইসলাম দেখতে পান পাটের তন্তুর খাঁজে খাঁজে ৫০টিরও বেশি অণুজীববা ব্যাকরিয়া বাস করে।

এসব ব্যাকটেরিয়ার মধ্যে স্টেফাইলো কক্কাস হোমিনিস নামের একটি ব্যাকটেরিয়াপাওয়া যায়; যা তার শরীর থেকে এমন কিছু তৈরি করে যাতে আবার অন্য ব্যাকটেরিয়ারা মারাযায়।

তাহলে কি আছে সেই ব্যাকটেরিয়ায়?

এই প্রশ্নের উত্তর খোজার কাজ শুরুকরেন জিন প্রকৌশল ও জৈব প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক আফতাব উদ্দিন।

আর তাতেই বেরিয়ে আসে নতুন এই এন্টিবায়োটিকের খোঁজ। যা বাঁচিয়ে দিতেপারে এন্টিবায়োটিক রেজিটেন্স হওয়া অনেক রোগীর প্রাণ।

গেলো তিন বছর ধরে চলা এই গবেষনায় তাদের পাশে ছিলো বাংলাদেশ বিজ্ঞানও শিল্প গবেষনা পরিষদ। গবেষক দলে বিসিএসআই-এর প্রতিনিধিসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীও।

গেলো ২৭মে বিজ্ঞান গবেষণার জন্য বিশ্বখ্যাত ন্যাচার পাবলিসিং গ্রুপের‘সাইন্টিফিক রিপোর্ট’ জার্নালে তাদের নতুন এন্টিবায়োটিকের গবেষনাপত্রটি প্রকাশ পেয়েছে।

ব্যাকটিরিয়া ও পাটের বৈজ্ঞানিক নাম Corchorus capsularis এর সাথে মিল রেখে নতুন এই এন্টিবায়োটিকেরনাম দেয়া হয়েছে হোমিকরসিন

চিকিৎসা বিজ্ঞানে ব্যবহৃত বেশিরভাগ অ্যান্টবায়োটিকই জীবাণুর বিরুদ্ধেপ্রতিরোধ ক্ষমতা হারিয়েছে। হাসপাতালেও রোগীরা সুপার বাগ নামে পরিচত এমন কিছু ব্যাকটেরিয়ায় সংক্রমিত হচ্ছেন যা প্রচলিত কোন অ্যান্টিবায়োটিকেই নিরাময় হচ্ছে না। সেখানেও সফল হয়েছেএই নতুন এন্টিবায়োটিক।

শুধু তাই নয়; হোমিকরসিনের নামের এই এন্টিবায়োটিকের মোট পাঁচটি ধরনপেয়েছেন তারা। যা এন্টিবায়োটিকের ইতিহাসে এক নতুন দীগন্ত উম্মোচন করবে; যেখানে লেখাথাকবে বাংলাদেশের নাম।

সূত্র – একাত্তর টিভি টিভি লাইভ

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!