Sunday, October 1, 2023
HomeNewsদৈনিক প্রথম আলো সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আটক ও হেনস্তার ঘটনায় মহেশখালী উপজেলা...

দৈনিক প্রথম আলো সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আটক ও হেনস্তার ঘটনায় মহেশখালী উপজেলা প্রেসক্লাব’র নিন্দা

দেশের শীর্ষ জাতীয় পত্রিকা দৈনিক প্রথম আলো এর জ্যৈষ্ঠ প্রতিবেদক সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে হেনস্তা এবং পরে শাহবাগ থানায় হস্তান্তরের ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন মহেশখালী উপজেলা প্রেসক্লাব

মহেশখালী উপজেলা প্রেসক্লাবের আহবায়ক স ম ইকবাল বাহার চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক ফারুক ইকবাল, সদস্য সচিব আ ন ম হাসান, মাওলানা ইউনুস, মোঃ এরফান হোসাইন, শহিদুল ইসলাম কাজল, এস এম রুবেল, মোঃ নেছার, রেজাউল করিম, রফিকুল ইসলাম সোহেল, আজিজ সিকদার, আশরাফুল করিম সিকদার নোমান, আরিফুল্লাহ নূরী, মাওলানা মিসবাহ উদ্দিন আরজু, কাইমুল ইসলাম ছোটন, সুব্রত আপন, কায়সারুল ইসলাম, মিসবাহ উদ্দিন ইরান, এ কে রিফাত সহ সকল সদস্যবৃন্দরা এক বিবৃতির মাধ্যমে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান ৷

বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতারা বলেন, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে জনগণের তথ্য পাওয়ার অধিকার নিশ্চিত করতে রোজিনা ইসলাম কাজ করছেন। তিনি তাঁর প্রতিবেদনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়ম তুলে এনেছেন।

এ ছাড়া করোনাকালীন সময়ে জনগণের স্বাস্থ্য অধিকার রক্ষায় মন্ত্রণালয়ের দূর্বলতা গুলোও তাঁর প্রতিবেদনে পরিষ্কারভাবে উঠে এসেছে। এসব প্রতিবেদন নিঃসন্দেহে স্বাস্থ্যখাতে সুশাসন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

এমন একজন সাংবাদিককে পেশাগত কাজের সময় এভাবে আটক করা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। রোজিনাকে আটকের এ ঘটনা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে একটি অত্যন্ত বাজে দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে, যা কোনোভাবেই প্রত্যাশিত নয়।

প্রথম আলো নিউজ কেন? যেকোনো সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিতে যে কেউ যেকোনো মুহুর্তে বাধ্য বলে এসময় তারা উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য গতকাল সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে সেখানে পাঁচ ঘণ্টার বেশি সময় আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়। একপর্যায়ে তিনি সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়েন। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে পুলিশ তাঁকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায়।

রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ জানায়, রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা হয়েছে। তাঁকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এই ঘটনার প্রতিবাদে সাংবাদিকেরা বিকেলে সচিবালয়ে এবং রাতে শাহবাগ থানার সামনে বিক্ষোভ করেন। এর নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে Committee To Protect Journalist (CPJ) কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট (সিপিজে), অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংগঠন।

এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা ঘটনার প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!