Saturday, June 22, 2024
HomeNewsছাত্রনেতা সাইফুলের সাহসিকতা;অপহরণকারীর কবল থেকে কিশোরী উদ্ধার

ছাত্রনেতা সাইফুলের সাহসিকতা;অপহরণকারীর কবল থেকে কিশোরী উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ বড় মহেশখালী ইউনিয়ন শাখার সভাপতি ও সমাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মিছিলের মহেশখালী উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ছাত্রনেতা এইচ এম সাইফুল ইসলামের সাহসিকতায় মোরশিদা আক্তার লিজা (১৬) নামের এক কিশোরী কে উদ্ধার করা হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কালারমার ছড়া ইউনিয়নের আঁধার ঘোনা গ্রামের সিরাজ মিয়ার মেয়ে মোরশিদা আক্তার লিজার (১৬) সাথে তার মা কলি আক্তারের সাথে ঝগড়াঝাটি হয়। একপর্যায়ে তার মা তাকে মারধর করেন।

এরপর বাড়ির অন্যান্য সদস্যদের অগোচরে মোরশিদা আক্তার লিজা বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। বের হয়ে আঁধার ঘোনা থেকে সোজা মহেশখালী পৌর সদরে চলে আসেন।

পৌরসভার রাখাইন পাড়ায় ঘুরাঘুরি করতে থাকেন। একপর্যায়ে কয়েকজন বখাটে তাকে ঘিরে ফেলেন। ঘটনাটি দূর থেকে আঁচ করতে পেরে দ্রুত মেয়েটি উদ্ধারে এগিয়ে আসেন ছাত্রনেতা এইচ এম সাইফুল ইসলাম।

প্রায় ৩০ মিনিটি তর্কাতর্কির পর একপর্যায়ে সাইফুল মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল হাই কে ফোন করে সহায়তা চায়। তৎক্ষনাৎ মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল হাই থানার ডিউটি অফিসার এসআই মনিষ সরকার কে বিষয় টি অবগত করেন।

এরি মধ্যে ছাত্রনেতা এইচ এম সাইফুল ইসলাম কিশোরী মোরশিদা আক্তার লিজা (১৬) কে নিয়ে মহেশখালী থানায় উপস্থিত হন।

মেয়েটির সাথে থাকা ব্যাগ তল্লাশি করে তার জন্ম নিবন্ধন সনদ পাওয়া যায়। এর সূত্র ধরে মেয়েটির পরিচয় নিশ্চিত করা হয়।

তার মাকে ফোন করে মেয়ে কে নিয়ে যাওয়ার জন্য থানায় আসতে বলা হয়। বিকেল ৫ টার দিকে কিশোরী মোরশিদা আক্তার লিজা (১৬) র মা ও তার এক আত্মীয় মহেশখালী থানায় উপস্থিত হন।

পরে ডিউটি অফিসার এসআই মনিষ সরকার কিশোরী কে আর মারধর করবে না মর্মে মুচলেকা নিয়ে কিশোরী মোরশিদা আক্তার লিজা কে তার মায়ের কাছে হস্তান্তর করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রনেতা এইচ এম সাইফুল ইসলাম বলেন, মোরশিদা আক্তার লিজা তাঁর মায়ের নির্যাতন সহ‍্য করতে না পেরে
বাড়ি থেকে মহেশখালী উপজেলা সদরে চলে আসেন। বিকেলে আমি রাখাইন পাড়ায় কাজে গিয়ে মেয়েটি একা একা এদিক ওদিক ছুটাছুটি করতেছে। হঠাৎ করে কয়েকজন বখাটে মেয়টিকে ঘিরে ফেলেন। মেয়েটি কান্নার দেখে আমি এগিয়ে গেলাম।

কান্নার কারণ জানতে চাইলে- মেয়েটি বখাটেরা তাকে নিয়ে যাচ্ছে বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

তারপর আমি ওসি স‍্যারকে কল দিযে বিষয়টি স‍্যার কে জানিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। কালারমার ছড়ায় আমার পরিচিতজনদের সাথে যোগাযোগ করে তার মা’র সাথে কথা বলে থানায় আসতে বলি। মেয়টির মা থানায় আসলে
পুলিশের মাধ্যমে মেয়েটিকে তার মায়ের কাছে হস্তান্তর করি।

প্রতিটি, মা, বাবার কাছে আমার বিনীত অনুরোধ- দয়া করে আপনারা আপনাদের ছেলে- মেয়েকে এমন ভাবেই শাসন করবেন না, যাতে ছেলে-মেয়েরা সহ‍্য করতে না পারে।
মায়া মমতা, ভালোবাসা, আন্তরিকতার সাথেই শাসন করুন।

আজ যদি কিশোরী মোরশিদা আক্তার লিজার কোনো অঘটন ঘটতো, এর দায়ভার কে নিতো, এমন প্রশ্ন সচেতনতামহলের প্রতি।

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!