Saturday, May 18, 2024
HomeNewsআমি মেডিকেলে চান্স পেয়েছি তাই ডাক্তার -ডা.সায়েদা শওকত

আমি মেডিকেলে চান্স পেয়েছি তাই ডাক্তার -ডা.সায়েদা শওকত

বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি ঘোষিত লকডাউন কার্যকরে পুলিশ চেকপোস্ট অপ্রীতিকর ঘটনার জন্ম দিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্বিবদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা.সায়েদা শওকত

‘আমি মেডিকেলে চান্স পেয়েছি তাই ডাক্তার , কিন্তু তুই পাসনি নাই তাই পুলিশ’- কঠোর বিধি নিষেধের মধ্যে চেকপোস্টে আইডি কার্ড দেখতে চাওয়া হলে শুরু হয় কথা কাটাকাটি। এক পর্যায়ে এভাবেই চিৎকার করেছেন ডা. সায়েদা শওকত।

চেকপোস্টে তিনি পুলিশকে তার আইডি কার্ড দেখাতে পারেননি। তাই তাকে আটকানো হলে ‘হারামির বাচ্চা’ বলেও মোবাইল কোর্টে থাকা ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ সদস্যদের সম্বোধন করতে দেখা যায় ওই ডাক্তার কে।

১৮ এপ্রিল (রবিবার) রাজধানীর নিউ এ্যালিফেন্ট রোডের একটি চেকপোস্টে এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। ফেসবুকে ইতোমধ্যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, চেকপোস্টে আইডি কার্ড দেখতে চাওয়া হলে ডা.সায়েদা শওকত আইডি প্রদর্শন করতে পারেন নি। তখন বাগবিতন্ডায় জড়িয়ে পরেন তিনি। নিজেকে বীর মুক্তিযোদ্ধার (বিক্রম) কন্যাও দাবি করেন।

তাকে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন সাংবাদিকদের কাছে। উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা ও ম্যাজিস্ট্রেট তখন বলেন, ‘আপনাকে হয়রানি করা হচ্ছে না। আপনাকে তো খারপ কিছু বলা হয়নি। আইডি কার্ড চাওয়া হয়েছে। আপনি এ রকম ব্যবহার করছেন কেন। আমরা তো আইনের কাজই করছি।’

এ পর্যায়ে গাড়িতে উঠে পরেন ওই চিকিৎসক। তখন আবারও উপস্থিত ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে বাগবিতন্ডায় জড়ান ডা.সায়েদা শওকত। এসময় তিনি আন্দোলনের ভয় দেখান পুলিশ সদস্যদের।  সাংবাদিকদের কাছে নালিশ করেন ওই চিকিৎসক। মোবাইল ফোনে একজন প্রতিমন্ত্রীকে কথা বলার জন্য ফোনটি ধরিয়ে দেন পুলিশ সদস্যসের হাতে।

এসময় উপস্থিত একজন সাংবাদিককে ওই চিকিৎসক বলেন,

‘সাংবাদিক ভাই শুনেন, দেখেন ডাক্তারদের সাথে কি করতেসে এই হারামজাদা পুলিশ।’ এসময় ডাক্তার হয়রানি বন্ধ করতে হবে বলেও কয়েকবার চিৎকার করেন ডা.সায়েদা শওকত।

এসময় ডা.সায়েদা শওকত চিৎকার করে বলেন, ‘এই শোন আমি মেডিকেলে চান্স পাইছি বলেই আমি ডাক্তার, তুই চান্স পাসনাই বলেই তু্ই পুলিশ।

আমি ডাক্তার,ডাক্তার,ডাক্তার! ডাক্তার হয়রানি বন্ধ করতে হবে! হবে!হবে!। আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ)সহযোগী অধ্যাপক (যুগ্মসচিব পদমর্যাদার)। ” —- ডাক্তার সায়েদা শওকত

এসময় ম্যাজিস্ট্রেট, ডাক্তার, পুলিশ তিনজনই মুক্তিযোদ্ধার সন্তান বলে চেঁচামেচি শুরু করেন। ভিডিও টি মূহুর্তের মধ্যে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় উঠে।

Related News
- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!