Friday, June 2, 2023
HomeEditorialআফগান যুদ্ধ অবসানের প্রেক্ষিতে দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতি

আফগান যুদ্ধ অবসানের প্রেক্ষিতে দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতি

সাইদুন্নিছা তোহ্ফা

দেড় যুগের ও বেশি সময় পর আফগান যুদ্ধের অবসান হতে যাচ্ছে। ঐতিহাসিক ৯/১১ এর পরিপ্রেক্ষিতে শান্তি প্রতিষ্ঠার নামে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযানে যায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার ন্যাটো মিত্ররা।

গতবছরের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্র এবং তালেবানের মধ্যকার স্বাক্ষরিত শান্তিচুক্তি অনুযায়ী আগামী ১১ই সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে বাইডেন প্রশাসন।

ইতিমধ্যে,জার্মানি ও ইতালি তাদের সৈন্য পুরোপুরি প্রত্যাহার করে নিয়েছে। অন্যদিকে, ঝড়ের গতিতেই দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহর সহ প্রায় ৮৫ ভাগ অঞ্চল দখলে নিয়েছে তালেবান। আফগান সরকার বাহিনীর পলায়ন এবং তালেবানদের দখলদারিত্ব আফগানিস্তানে কাবুল সরকারের পতনকে নিশ্চিত করছে।

তবে কি আফগান সরকারের পতন বিশ্বরাজনীতির মোড় পাল্টে দেবে? যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের পুনর্গঠনে বড় অংকের বিনিয়োগের দরকার তালেবানদের। সেক্ষেত্রে, চীনের উইঘুর মুসলিমদের উপর সরকারের নিগ্রহের পর ও দেশটির প্রতি ঝুঁকছে আফগান ইসলামি সংগঠন তালেবান।

অনেক রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারণা , আফগানিস্তানে বিপুল খনিজের মজুদ থাকায় বিশ্বমোড়লরা তালেবানমুখী হবেন। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, বিশ্ব রাজনীতিতে প্রভাব বিস্তৃতিতে খুব একটা বেগ পেতে হবেনা তালেবানদের।

ইতিমধ্যে, ন্যাটোর হয়ে কাবুল বিমানবন্দরে ৫০০ তুর্কি সৈন্য বহাল রেখে নিরাপত্তার দায়িত্ব নিচ্ছে তুরস্ক। যদিও তালেবানের মুখপাত্র এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়ে আসছে। কিন্তু আঙ্কারার সাথে তালেবানের সম্পর্ক কতদূর গড়াবে তা ভবিষ্যৎ বলে দেবে।

কিন্তু এতকিছুর পরও যুক্তরাষ্ট্রের ফিরে যাওয়ার প্রসঙ্গ নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র ইন্দোপ্যাসিফিক অঞ্চলে তার প্রভাব মজবুত করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। মূলত বঙ্গোপসাগরে কোকো দ্বীপপুঞ্জ সহ ইন্দোপ্যাসিফিক অঞ্চলে চীনের প্রভাব হটাতে দীর্ঘ ২০বছরের আফগান যুদ্ধের ইতি টানছেন বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা।

চীনের সাথে আফগানিস্তানের সীমান্ত থাকায় মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির অগ্রাধিকার তালিকায় আফগান রাজনীতি নতুনভাবে যুক্ত হতে পারে।

সুতরাং আফগানিস্তানে পুরোপুরো শান্তি ফিরে আসার বিষয়টি এখনো অনিশ্চয়তাই ঢাকা।

পরিশেষে, ন্যাটো বাহিনীর প্রস্থানে আফগানিস্তান তথা দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতির মোড় কতটুকু ঘুরবে তা কেবল সময় বলে দেবে।

✍️সাইদুন্নিছা তোহ্ফা
উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগ-
চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ।

Related News

1 COMMENT

  1. আফগানিস্তানের জনগণ বরাবরই তালেবানকে সাপোর্ট করে আসছে। কারণ কাবুল সরকার এর সময়ে জনগণ কে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়।

Comments are closed.

- Advertisment -

Popular News

error: Content is protected !!